বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ঘোষণা :

ভারতীয় ব্যাবসায়ীদের অনুরোধে হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানির সময়সীমা বৃদ্ধি।

হিলি প্রতিনিধিঃ- ভারতে  রপ্তানিমূখী পণ্যবোঝাই ট্রাকের জট সৃষ্টির কারনে  ভারতীয় ব্যাবসায়ীদের অনুরোধে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বাড়ানো হয়েছে আমদানি-রপ্তানির সময়সীমা। ফলে বন্দরে বেড়েছে ভারতীয় পণ্যবাহী ট্রাক প্রবেশের সংখ্যা,ব্যবসায়ী ও শ্রমিকদের মাঝে ফিরেছে কর্মপ্রাণঞ্চলতা।পুরোদমে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য শুরু হওয়ায় খুশি বন্দরের আমদানিকারকরা।

করোনা মহামারীর মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সচল ছিলো হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম।তবে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে কয়েক দফা কমিয়ে প্রতিদিন আমদানি-রপ্তানি পণ্যবাহী ট্রাক প্রবেশের সংখ্যা করা হয় ৮০/১০০ ট্রাকে,কমানো হয় সময়সীমা,  আর এতে ভারত অভ্যন্তরে পণ্যবাহী ট্রাকে দীর্ঘ লাইন সৃষ্টি হয়ে যানযট, পণ্য নষ্ট ও লোকসান এরাতে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের চিঠি দিয়ে আমদানি-রপ্তানির সময়সীমা বাড়ানো অনুরোধ জানান ভারতের ব্যাবসায়ীরা।সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে বাড়ানো হয়েছে আমদানি-রপ্তানির সময়সীমা। প্রতিদিন এখন এই বন্দর দিয়ে দুই শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক প্রবেশ করছে।

হিলি স্থলবন্দরের শ্রমিক আব্দুর রহিম ও শফিক  বলেন,করোনার ধকল কাটিয়ে আবারো আমাদের বন্দরে আমদানি-রপ্তানি বেড়েছে। আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্য বেড়েছে এরকম থাকলে আমাদেরও ভালো।এখন পাইকাররা বন্দরে আসতেছে আমাদের বাঁকি গুলো তাদের থেকে উঠাতে পারবো।

হিলি স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশিদ হারুন  বলেন,করোনার কারনে সরকারের নির্দেশনা মেনে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে আমরা হিলি স্থলবন্দরের ব্যবসায়ীরা আমদানি-রপ্তানির সময়সীমা কমিয়ে ছিলাম,এতে করে প্রতিদিন এই বন্দরে ৮০ থেক ১০০ টি ট্রাক প্রবেশ করে, সেই ট্রাক গুলোর পণ্য খালাস করে  একই দিন বিকেল ৫টায় ভারতে পাঠানো হতো।
তবে সম্প্রতি ভারতের ব্যাবসায়ীরা সময়সীমা বাড়ানোর জন্য আমাদেরকে অনুরোধ করে চিঠি দিয়েছে সে প্রেক্ষিতে আমরা আমদানি-রপ্তানির সময়সীমা বাড়িয়ে দিয়েছি।এখন এই বন্দরে দুইশ পণ্যবাহী ট্রাক প্রবেশ করছে।

হিলি পানামা পোর্টের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন প্রতাব মল্লিক  বলেন,করোনার সংক্রমণ কিছুটা কমে যাওয়ায় হিলি স্থলবন্দরে আবারো আমদানি-রপ্তানি বেড়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে বন্দর অভ্যন্তরে আমরা সবধরনের কাজ করে যাচ্ছি। যেহেতু দেশের বাজারে আমদানিকৃত পণ্যের চাহিদা রয়েছে তাই আমদানিকৃত সকল পণ্য দ্রুত ছাড়করণে ব্যবসায়ীদের সবধরনের সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছি।
তিনি আরো জানান,আমদানি-রপ্তানি বাড়লে সরকারের রাজস্ব যেমন বাড়বে তেমনি পানামা কর্তৃপক্ষের দৈনন্দিন আয়ও বাড়বে।

হিলি কাস্টমসের তথ্যমতে,গেলো ৭ কর্ম দিবসে ভারত থেকে চাল,গম,ভুট্টা,পেঁয়াজ,পাথরসহ  ৪০ হাজার ৬শ ৪১ মেট্টিক টন বিভিন্ন পণ্য আমদানি হয়েছে এই বন্দর দিয়ে যেখান থেকে সরকার রাজস্ব পেয়েছে ৬ কোটি ৩৮ লক্ষ টাকা।



All Bangla Newspaper
ফেসবুকে আমরা

error: Content is protected !!