সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৮:৩৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ঘোষণা :

পায়রা সেতু পরিদর্শণে মহাসড়ক বিভাগ সচিব ।

পটুয়াখালী জেলা প্রতিনিধি::- বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলবাসীর স্বপ্নের লেবুখালীর পায়রা সেতু চলতি (সেপ্টেম্বর) মাসের মধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি উদ্বোধনের মাধ্যমে যানবাহন চলাচলের জন্য সেতুটি উন্মুক্ত করে দেওয়ার লক্ষ্যে দিনরাত কাজ করছে চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান।

ঢাকা-বরিশাল-পটুয়াখালী মহাসড়কের (এনএইচ-৮) ১৯২ কিলোমিটার এবং বরিশাল-পটুয়াখালী মহাসড়কের ২৭ কিলোমিটারে লেবুখালীর পায়রা নদীর ওপর সব শেষ সেতুনির্মাণের কাজ শুরু হয় ২০১৬ সালের ২৪ জুলাই। কুয়েতফান্ড ফর আরবইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট (কেএফএইডি) এবংওপেকফান্ড ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্টের (ওএফআইডি) যৌথ অর্থায়নে ১ হাজার ৪৪৭ কোটি ২৪ লাখ টাকা ব্যয়ে সেতু নির্মাণের দায়িত্ব পায় চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান লংজিয়ান রোড অ্যান্ডব্রিজ কোম্পানি লিমিটেড। কার্যাদেশে সেতু নির্মাণে ৩৩ মাস সময় বেঁধে দেওয়া হলেও দুই দফায় প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে ২০২২ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত। ২০১৩ সালের ১৯ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পায়রা সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেন।

১৮ সেপ্টেম্বর সকাল ১০ টায় পায়রা সেতু (লেবুখালী সেতু) নির্মান প্রকল্প পরিদর্শন, প্রকল্পের বর্তমান অবস্থা ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক উদ্বোধনের সার্বিক বিষয়াদি নিয়ে পর্যালোচনা করেন সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মোঃ নজরুল ইসলাম। এ সময় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোঃ আব্দুল মালেক, উপসচিব সুলতানা ইয়াসমিন, মোঃ সামিমুজ্জামান, ফারজানা জেসমিন, পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামাল হোসেন, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আবু হেনা মোহাম্মদ তারেক ইকবাল, বরিশাল বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদ মাহমুদ সুমন, বরিশাল জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক প্রশান্ত কুমার দাস, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দুমকি শেখ আব্দুল্লাহ সাদীদ, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দুমকি থানা মেহেদী হাসান ও প্রকল্প পরিচালক এম.এ হালিমসহ জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, সাংবাদিক বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, দক্ষিনাঞ্চলের মানুষের প্রত্যাশিত স্বপ্নের সেতু উদ্বোধনের লক্ষে তিনি ৫ম বারের মত পায়রা সেতুর কাজের অগ্রগতি পর্যবেক্ষনে আসেন। সেতুটি উদ্বোধনের পূর্বে ত্রুটি বিচ্যুতি কাজগুলো অতিদ্রুত সমাপ্তির জন্য প্রকল্প পরিচালককে নির্দেশনা দেন এবং জেলা ও উপজেলা প্রশাসনকে প্রস্তুতিমূলক সভা করে উদ্বোধনের কার্যক্রম বিষয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করার জন্য নির্দেশ দেন।



All Bangla Newspaper
ফেসবুকে আমরা

error: Content is protected !!