বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ঘোষণা :

যশোরে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র-গুলিসহ ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার

৮টি বিদেশি পিস্তল, ১৬টি ম্যাগাজিন ও ৮ রাউন্ড গুলিসহ গ্রেফতার হয়েছেন যশোরের শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আকুল হোসাইনসহ  তার চার সহযোগী।

বুধবার গভীর রাতে ঢাকার মিরপুর দারুসসালাম গাবতলী এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। জব্দকৃত অস্ত্রগুলো দেশের বিভিন্ন সংগঠনের কাছে বিক্রি করা হতো বলে তারা জানায়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- আকুল হোসেন (৩৫) বেনাপোলে ঘিবা গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে; মো. ফজলুর রহমান (৩০)বেনাপোলের ভবেরবেড় গ্রামের আজিবরের ছেলে; সিএন্ডএফ এজেন্ট ব্যবসায়ী ফারুক হোসেন মিলন (২৮) বেনাপোলের বোয়ালিয়া গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের ছেলে; মো. ইলিয়াস হোসেন (৩৪)যশোর শহরের আমির হোসেনের ছেলে ও সিএন্ডএফ এজেন্ট ইয়ান ভাজার ছেলে আজিম উদ্দিন আজিম (২৭)।

পুলিশ জানিয়েছে, গ্রেফতার হওয়া আকুল হোসেন যশোরের শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক। তার বিরুদ্ধ হত্যা, অস্ত্র, চাঁদাবাজি, সোনা ছিনতাই, মারামারিসহ কাস্টমস কর্মকর্তাদের ওপর হামলা সংক্রান্ত ৮টি মামলা রয়েছে বেনাপোল পোর্ট থানায়। আকুল হোসেন যাদের কাছে অস্ত্র বিক্রি করতো তাদের অধিকাংশই জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে জড়িত বলে বেনাপোল পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুলফিকার আলী মন্টু জানান।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ জানায়, বেনাপোল থেকে বিপুল পরিমাণ বিদেশি অস্ত্রের একটি বড় চালান পাচার হয়ে ঢাকায় যাচ্ছে- এমন ধরনের গোপন সংবাদ পেয়ে ঢাকা থেকে আসা ডিবির একটি বিশেষ টিম ঢাকার মিরপুর দারুসসালাম গাবতলী এলাকা থেকে একটি প্রাইভেটকার আটক করে। পরে প্রাইভেটকার থেকে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আকুল হোসাইনসহ ৫ জনের দেহ তল্লাশি করে ৮টি পিস্তল, ১৬টি ম্যাগাজিন ও ৮ রাউন্ড গুলিসহ তাদের আটক করে ঢাকায় ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়।

আটক ফজলুর রহমানের পিতা আজিবর রহমান বলেন, ঢাকা ডিবি পুলিশ আমার ছেলে ও আকুল হোসাইনসহ ৫ জনকে ৮টি পিস্তলসহ আটক করেছে। আমার ছেলেকে বাড়ি থেকে সিএন্ডএফ এজেন্ট ব্যবসায়ী আজিম উদ্দিন ও মিলন হোসেন ডেকে নিয়ে যায় ঢাকায় যাওয়ার জন্য।

বেনাপোল পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুলফিকার আলী মন্টু জানান, গত ১০ দিন  আগেও ঘিবা সীমান্ত দিয়ে বিদেশি পিস্তলের একটি বড় চালান আকুল হোসেন পাচার করে নিয়ে আসে।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের ডিসি মোশাররফ হোসেন বলেন, আকুল হোসাইন দীর্ঘদিন ধরে অস্ত্র ব্যবসা, মাদক ব্যবসা ও সোনা ছিনতাই কাজে জড়িত। সে ঘিবা সীমান্ত দিয়ে একটি আন্তর্জাতিক অস্ত্র চোরাকারবারী দলের মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ অত্যাধুনিক অস্ত্র পাচার করে এনে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করে আসছিল বলে আমরা জানতে পারি। এই চক্রটির প্রধান আকুল হোসেন ২০১৪ সাল থেকে দুই শতাধিক অস্ত্র নিজে বিক্রি করেছে। অস্ত্র চোরাচালানসহ চক্রের সদস্যরা তক্ষক প্রতারণা, সীমান্ত পিলার, সাপের বিষ, গোল্ড স্মাগলিং, প্রত্নতাত্ত্বিক মূর্তি, ইয়াবা, আইস মাদক চোরাচালানে জড়িত।



All Bangla Newspaper
ফেসবুকে আমরা

error: Content is protected !!